ক্রিকেট ফ্যাক্ট
জনপ্রিয়

লিটনের ব্যর্থতার কারণ মিরপুরের পিচ : শোয়েব মালিক

‌ইংল্যান্ডের পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও ব্যাটিং ধ্বস। প্রথম দিকের ব্যাটাররা মোটেও ভালো খেলতে পারছেন না। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লিটন দাস যাও একটা ইনিংস খেলেছিলেন, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আউট হয়েছেন প্রথম বলেই। ধর্মশালায় ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪৯ রানে হারিয়েছে ৪ উইকেট। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও ৫৬ রানে ৪ উইকেট হারিয়েছে টাইগাররা।

শুধু এবারের বিশ্বকাপেই নয়, দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশের ইনিংস মানেই শুরুতে তুমুল ব্যাটিং ধ্বস। এরপর কারো ব্যাটে হয়তো একটু ঘুরে দাঁড়ানো হয়। নয়তো সেই লো স্কোরিংয়ের লজ্জা নিয়েই ব্যাটিং শেষ করে বাংলাদেশ দল।

 

বিশ্বকাপের বাছাই পর্ব আইসিসি ওয়ানডে সুপার লিগে ৩ নম্বরে থেকে শেষ করা বাংলাদেশ কেন বিশ্বকাপে এসে এতটা ভুগছে? কেন ব্যাটিংয়ে এমন দুর্দশা দেখা যাচ্ছে? এ নিয়ে নিয়ে তুমুল আলোচনা করেছেন পাকিস্তানের চার কিংবদন্তি ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম, মইন খান, মিসবাহ-উল হক এবং শোয়েব মালিক।

 

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ শেষে এ স্পোর্টসের লাইভ টক শো অনুষ্ঠান দ্য প্যাভিলিয়নে ফাখরে আলমের উপস্থাপনায় এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উল্লেখিত চার সাবেক পাকিস্তানি ক্রিকেটার।

সেখানেই বাংলাদেশে ব্যাটিং দুর্দশার কারণ খুঁজতে গিয়ে পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার শোয়েব মালিক এর জন্য মিরপুরের উইকেটকেই সবচেয়ে বেশি দায়ী করলেন। তিনি জানালেন, মিরপুরে রান করা খুবই কষ্ট।

 

শোয়েব মালিক বলেন, ‘বাংলাদেশ যে সিরিজগুলো জিতেছে, সব কটিই ছিল লো স্কোরিং। তাদের স্পিনারদের পরিসংখ্যান দেখলে বিষয়টা নজরে আসে। এই ঘটনা কিন্তু আমাদের সঙ্গেও হয়েছিল। এক সময় আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটে শুধু পেস-সহায়ক উইকেট বানানো হতো। তাতে ১৪০ – এর বেশি গতিতে বোলিং করা পেসার আসা অনেকটাই কমে গিয়েছিল। এর ফলে স্পিনাররাও কম আসতে শুরু করে। বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা এমন। তাদের মিরপুর এমন একটা মাঠ যেখানে রান করা মোটেই সহজ নয়।’

 

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক বাংলাদেশের ব্যাটিং সম্পর্কে সব সময়ের কথাটাই বলেছেন, ‘দায়িত্ব নিতে হবে। ৩০-৪০ করলে আপনার দল জিতবে না। টপ অর্ডারের চারজনের থেকে সেঞ্চুরি আসতে হবে, সেটা হচ্ছে না। এটাই বাংলাদেশের বড় সমস্যা।’

 

লিটন দাস প্রথম বলে স্কয়ার লেগে ফ্লিক করতে গিয়ে আউট হলেন ফাইন লেগে দাঁড়িয়ে থাকা ম্যাট হেনরির হাতে ক্যাচ দিয়ে। এ নিয়ে ওয়াসিম আকরাম মনে করেন, লিটন শটটা ভিন্নভাবেও খেলতে পারতো। তিনি বলেন, ‘লিটন দাস অনেক দিন ধরে খেলছে। সে এখন আর তরুণ নয়। বুঝতে পারলাম, বলটা বাজে ছিল। ন্যাচারালি শটটা চলে এসেছে। তবে এটা ৫০ ওভারের সংস্করণ। ফাইন লেগ যদি পিছে থাকে, তাহলে সিঙ্গেল নাও। এসব কি লিটনকে আমাদের বলতে হবে?’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button