ওয়ানডে বিশ্বকাপ
জনপ্রিয়

উইসডেনের চোখে এবারের বিশ্বকাপের সেরা ৬ বোলার

বিশ্বকাপের বাকি মাত্র ৩ দিন। ২০১১ সালের পর ভারতের মটিতে বসছে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। উপমহাদেশের কন্ডিশন স্পিন বান্ধব হলেও বিশ্বকাপের জন্য পিচে পেসারদের জন্যও সাহায্য থাকবে।

ভারতের আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে ৫ অক্টোবর ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ। তার আগে উইজডেন বেছে নিয়েছে ৬ বোলারকে। যারা হতে পারেন টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। যেখানে আছেন ভারতের তিনজন, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার একজন বোলার।

উইজডেনের লিস্টে যারা আছেন:

কুলদীপ যাদব (ভারত)
কুলদীপ বেশ কিছুদিন ভারতীয় জাতীয় দলের বাইরে ছিলেন। তবে নতুন করে ফিরে এসে কুলদীপ যেন নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করেছেন।ওয়ানডেতে ২০২৩ সালে নিয়েছেন ৩৩ উইকেট, যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। সর্বোচ্চ ৪৩ উইকেট এ বছর নিয়েছেন সন্দীপ লামিচানে। তবে এ বছর বিশ্বকাপে খেলা বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ উইকেট কুলদীপের।

শাহীন শাহ আফ্রিদি (পাকিস্তান)
২০১৯ সালে নিজের প্রথম বিশ্বকাপে পাকিস্তানের একাদশে ছিলেন ৫টি ম্যাচে। তাতেই নিয়েছেন ১৬ উইকেট। নতুন বলে শাহিন শাহ আফ্রিদি কতটা কার্যকরী, তা তো সবারই জানা। এবছর ১২ ওয়ানডে খেলে নিয়েছেন ২৪ উইকেট।

মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া)
ওয়ানডে বিশ্বকাপ, অথচ সর্বোচ্চ উইকেটশিকারিদের তালিকায় মিচেল স্টার্ককে না রাখা হবে হাস্যকর। এ বছর মাত্র ৪টি ওয়ানডে খেললেও বিশ্বকাপ প্রস্তুতিটা যে মন্দ হচ্ছে না, সেটা নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে বুঝিয়ে দিয়েছেন। আগের দুই বিশ্বকাপে স্টার্কই ছিলেন সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি। ২০১৫ সালে ট্রেন্ট বোল্টের সঙ্গে যৌথভাবে (২২ উইকেট), ২০১৯ সালে এককভাবে (২৭ উইকেট)।

জাসপ্রীত বুমরাহ (ভারত)
জাসপ্রীত বুমরার মতো ফাস্ট বোলার পাওয়াকে ভারত আশীর্বাদ হিসাবে দেখতেই পারে। তাঁর অনুপস্থিতি দলকে কতটা ভোগায়, সেটা গত বছর টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই দেখা গেছে। পিঠে অস্ত্রোপচারের কারণে প্রায় ১১ মাস মাঠে বাইরে ছিলেন। গত আগস্টে ৩২৭ দিন পর ভারতের জার্সিতে খেলতে নেমেই হয়েছিলেন ম্যাচসেরা।ফিরেই দেখানো শুরু করলেন তাঁর পুরোনো ঝলক। বৈচিত্র্যময় বোলিংয়ে ডেথ ওভারে ব্যাটারদের রান আটকাচ্ছেন দারুণভাবে।

ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড)
৩৯ উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ড বোলারদের মধ্যে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেট ট্রেন্ট বোল্টের। যার মধ্যে ২০১৫ বিশ্বকাপে স্টার্কের সঙ্গে ২২ উইকেট নিয়ে যৌথ সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ছিলেন বোল্ট। গত বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে করেছেন হ্যাটট্রিক।

মোহাম্মদ সিরাজ (ভারত)
আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের ১ নম্বরে থেকে বিশ্বকাপ খেলতে নামছেন মোহাম্মদ সিরাজ। বল হাতে সিরাজ কতটা ভয়ংকর হয়ে উঠে পারেন, সেটা তো সর্বশেষ এশিয়া কাপ ফাইনালেই দেখা গেছে। মাত্র ২১ রানে ৬ উইকেট নিয়ে রেকর্ড বই ওলট পালট করে দিয়েছেন। এ বছর ওয়ানডতে ফাস্ট বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উইকেট তাঁর (৩০)। ৫ ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়ে এশিয়া কাপে ছিলেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি।

তবে এবছর বাংলাদেশের পেসারদের অবহেলা করাও ঠিক হবে না।বর্তমান সময়ে টপ ফর্মে আছেন বাংলাদেশের পেসাররা।এনাল ডোনাল্ড এর অধীনে বাংলাদেশ দলের পেসাররা পুরো বদলে গেছে।আগে যেখানে বাংলাদেশের বোলিং সম্পূর্ণ স্পিন নির্ভর ছিল। সেখানে এখন শর্ট ফরমেটের ক্রিকেটে বাংলাদেশের পেসারদের উপরই নজর বেশি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button